রাজশাহীর ৫৭ চরমপন্থী পেলেন প্রধানমন্ত্রীর চেক

ঢাকা, শনিবার, ৬ জুন ২০২০ | ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

রাজশাহীর ৫৭ চরমপন্থী পেলেন প্রধানমন্ত্রীর চেক

তোফাজ্জল হোসেন ৯:৪০ অপরাহ্ণ, মে ১৮, ২০২০

print
রাজশাহীর ৫৭ চরমপন্থী পেলেন প্রধানমন্ত্রীর চেক

আত্মসমর্পণ করে স্বাভাবিক জীবনে ফেরা রাজশাহীর ৫৭ জন চরমপন্থী সদস্যকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান দেওয়া হয়েছে। সোমবার রাজশাহী জেলা পুলিশ লাইন্সে আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকার করে চেক দেওয়া হয়।

গত বছরের ৯ এপ্রিল পাবনায় ৫৩৯ চরমপন্থীর সঙ্গে রাজশাহীর এই ৫৭ জন চরমপন্থীও আত্মসমর্পণ করেন। ওই দিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে এক লাখ টাকা করে আর্থিক অনুদান পান তারা। এবার করোনাভাইরাস পরিস্থিতির জন্য তাদের আরও ৫০ হাজার টাকা করে আর্থিক অনুদান দিলেন প্রধানমন্ত্রী।

রাজশাহীর ৫৭ জনের মধ্যে জেলার বাগমারা উপজেলার আত্মসমর্পণকারী চরমপন্থী সদস্য ৩৩ জন। এছাড়া পুঠিয়া উপজেলার ১৬ জন, দুর্গাপুরের ৫ জন এবং মহানগর এলাকার বাসিন্দা ৩ জন। এদের মধ্যে একজন মারা গেছেন। তার স্ত্রীকেও প্রধানমন্ত্রীর এই ৫০ হাজার টাকা অনুদানের চেক দেওয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে তাদের হাতে অনুদানের চেক তুলে দেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। সন্ত্রাসী জীবন ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে আসায় মেয়র লিটন তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সরকারের সব দিকে নজর রয়েছে। সরকার আত্মসমর্পণকারী চরমপন্থীদের পুনর্বাসনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই প্রতিশ্রুতি পূরণ করেছেন। এখন আর আত্মসমর্পণকারীদের পেছনে ফিরে তাকানোর সুযোগ নেই। সবাই নিজ নিজ জায়গা থেকে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে নিজেকে সম্পৃক্ত করবেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) একেএম হাফিজ আক্তার, জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার রাজশাহী অঞ্চলের যুগ্ম পরিচালক জহির উদ্দিন, জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক ও জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহিদুল্লাহ।

অনুষ্ঠানে চরমপন্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পূর্ব বাংলা কমিউনিস্ট পার্টি এমএল লাল পতাকার রাজশাহী, নাটোর, নওগাঁ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ অঞ্চলের নেতা আবদুর রাজ্জাক বাবু ওরফে আর্ট বাবু। তিনি বলেন, সরকারের আহ্বানে আমরা আত্মসমর্পণ করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছি। সরকারের কাছে যা চেয়েছি, তার চেয়েও বেশি পেয়েছি। তাই আমাদের কারও আর অন্ধকারে জীবনে ফিরে যাওয়ার প্রয়োজন।