চট্টগ্রামে গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণে নিহত ৭

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

চট্টগ্রামে গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণে নিহত ৭

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি ১০:১৯ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৭, ২০১৯

print
চট্টগ্রামে গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণে নিহত ৭

চট্টগ্রাম নগরীর পাথরঘাটা এলাকায় গ্যাস লাইনের রাইজার বিস্ফোরিত হয়ে ৭ জন নিহত হয়েছেন। এ সময় দগ্ধ হয়েছেন আরও অন্তত ২০ জন। রোববার ভোরে শহরের কতোয়ালী থানারধীন পাথরঘাটা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের পরিচয় জানা যায়নি। কোতোয়ালি থানার ওসি মো. মহসিন ঘটনার সত‌্যতা নিশ্চিত করেছেন।

 

ওসি মো. মহসিন জানান, সকাল ৯টার দিকে বিকট শব্দ পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে আসি। মূলত বিস্ফোরণে একটি দেয়াল পথচারীদের ওপর ধসে পড়লে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। বাকিদের অবস্থা ভালো নয়।

স্থানীয়রা জানান, পাথরঘাটা ব্রিকফিল্ড রোডে গ্যাস লাইনের রাইজার বিস্ফোরিত হয়ে ভবনের একাংশ ভেঙে গেছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা কাজ করছে। এ ঘটনায় আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

বিস্ফোরণে ওই ভবনের সীমানাপ্রাচীর ধসে রাস্তার ওপর পড়লে পথচারীরাও আহত হন। এছাড়াও ওই বিল্ডিংয়ের পাশাপাশি উল্টো দিকের আরেকটি বিল্ডিংয়ের নিচতলার দোকানও বিস্ফোরণের ধাক্কায় ক্ষতিগ্রস্ত হয় বলেও জানান স্থানীয়রা।

কোতোয়ালী থানার পরিদর্শক তদন্ত মো. কামরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নগরীর পাথরঘাটা এলাকায় এ ঘটনায় ঘটনাস্থলেই সাতজন নিহত হয়েছেন। এ সময় দগ্ধ হন অন্তত আরও ২০ জন। দগ্ধদের উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিস্ফোরণের কারণ জানতে ফায়ার সার্ভিস তদন্ত শুরু করেছে বলেও জানান পুলিশ কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান।

ঘটনাস্থলে দায়িত্বরত চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক পূর্ণচন্দ্র মুৎসুদ্দী জানান, বড়ুয়া বিল্ডিংয়ের নিচতলায় সীমানা প্রাচীরের পাশেই ওই বাড়ির গ্যাস রাইজার, বিস্ফোরণটি সেখানেই হয়েছে।

৩৪ নম্বর পাথরঘাটা ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ইসমাইল বালি জানান, ব্রিক ফিল্ড রোড সকাল থেকেই ব্যস্ত থাকে। বড়ুয়া বিল্ডিংয়ে যখন বিস্ফোরণ হল তখন ১৬ ফুট চওড়া ওই রাস্তায় প্রচুর মানুষ আর রিকশা ছিল।

বিস্ফোরণের পর ভবনের সীমানা প্রাচীর ভেঙে রাস্তায় মানুষের ওপর পড়ে। আমরা পিকআপ ভ্যানে করে বেশ কয়েকজনকে হাসপাতালে পাঠিয়েছি, তাদের মধ্যে পথচারীও ছিল। ক্ষতিগ্রস্ত রিকশা এখনও রাস্তায় পড়েছে আছে।

এ দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, গ্যাস লাইন বিস্ফোরণের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৭ জনকে হাসপাতালে আনা হয়েছে। এদের মধ্যে সাতজনকে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেছেন।