তরুণদের নিয়ে সাংসদ নাহিম রাজ্জাকের রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভিজিট

ঢাকা, রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

তরুণদের নিয়ে সাংসদ নাহিম রাজ্জাকের রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভিজিট

নিজস্ব প্রতিবেদক ৫:৩৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৫, ২০১৯

print
তরুণদের নিয়ে সাংসদ নাহিম রাজ্জাকের রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভিজিট

কক্সবাজারে ইয়্যুথ এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামে অংশ নেওয়া ডেনমার্ক ও বাংলাদেশ ৫৩ তরুণকে নিয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভিজিট করেছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য সাংসদ নাহিম রাজ্জাক। আজ মঙ্গলবার তিনি উখিয়ার ১৩ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভিজিট করেন। এ সময় তিনি দুই দেশের তরুণদের রোহিঙ্গা শরনার্থী সমস্যা সম্পর্কে অবহিত করেন।

সাংসদ নাহিম রাজ্জাক বলেন, 'রোহিঙ্গা সমস্যা বাংলাদেশের একার সমস্যা নয়, তাই এই সমস্যার সমাধান আন্তর্জাতিকভাবে করতে হবে। বাংলাদেশ সরকার রোহিঙ্গা শরনার্থীদের আন্তরিকভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের নিজ দেশ মায়ানমারে প্রত্যাবাসনে সব পক্ষের সহযোগিতা দরকার। তিনি বৈশ্বিক এই সংকট সমাধানে তরুণদের ভূমিকা রাখার আহবান জানান।

ইয়্যুথ এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রাম নিয়ে সাংসদ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন, তরুণদের মাঝে এমন চর্চা আরো বেশি হওয়া দরকার।'

প্রসঙ্গত, দ্যা আর্থ সোসাইটির আয়োজনে দুই নভেম্বর থেকে কক্সবাজার পর্যটন মোটেল উপলে ডেনমার্ক থেকে আগত ২৬ জন এবং বাংলাদেশের ২৭ জন তরুণ-তরুণীর অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ইয়্যুথ এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রাম। প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভিজিট, স্থানীয় গ্রাম ভিজিট, কর্মশালা, স্থানীয় তরুণদের সঙ্গে মতবিনিময়, ক্যাম্পেইন প্ল্যানিং ও দুই দেশের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

ইয়্যুথ এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের সমন্বয়ক মোহাম্মদ মামুন মিয়া খোলা কাগজকে বলেন, ‘ইয়্যুথ এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রাম’ এর মাধ্যমে বিশ্বের সকল তরুণদের মধ্যে চিন্তা এবং বিভিন্ন কার্যক্রমের সমন্বয় করা হবে। যাতে তরুণেরা বিশ্বের নানা সংকট নিরসনে ভূমিকা রাখতে পারে।

তিনি বলেন, 'শরনার্থী সংকট উত্তরণের উপায় এবং বিশ্বকে কিভাবে এসকল সংকট থেকে মুক্ত করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা, মতামত, বিভিন্ন পরিস্থিতি মোকাবেলা করার বিষয়ে দুই দেশের তরুণদের নিয়ে এই ইয়ুথ এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের আয়োজন করা হয়েছে।'

আয়োজক সংস্থা জানান, দুই নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া ইয়্যুথ এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রাম চলবে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত। ইয়্যুথ এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামে দ্যা আর্থ সোসাইটির সঙ্গে যুক্ত রয়েছে ইন্টার কলেজ, ইয়্যুথ অ্যাকশন, ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের ইরাসমাস প্লাস।