কক্ষ সংকটে সিঁড়িতে পাঠদান

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯ | ৮ কার্তিক ১৪২৬

কক্ষ সংকটে সিঁড়িতে পাঠদান

ইকবাল হোসেন সুমন, নোয়াখালী ৫:০০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৪, ২০১৯

print
কক্ষ সংকটে সিঁড়িতে পাঠদান

নোয়াখালী সদর উপজেলার নেওয়াজপুর ইউনিয়নের ধর্মপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি মাত্র কক্ষে ২২৪ শিক্ষার্থীকে দেওয়া হচ্ছে পাঠদান। কক্ষে জায়গা না হওয়ায় তাই বারান্দা ও সিঁড়িতে চলে শিক্ষার্থীদের পাঠদান।

আবার বৃষ্টি হলেই সে ভবন চুইয়ে পড়ে পানি। বিদ্যালয়ে নেই সুপেয় খাবার পানির ব্যবস্থা। সামান্য বৃষ্টিতে স্কুলের ছোট মাঠটিতেও জমে যায় কোমর পরিমান পানি। এক কথায় বিদ্যালয়টিতে পাঠদানের নূন্যতম পরিবেশও নেই। এরপরও থেমে নেই শিক্ষার্থীদের পাঠদান। এর মধ্যে যার সফলতা মিলেছে গত আট বছর সমাপনী পরীক্ষায় শতভাগ পাস।

শিক্ষকরা জানান, ওই একটি মাত্র কক্ষই এখন বিদ্যালয়ের ছয়টি শ্রেণির ২২৪ জন শিক্ষার্থীর জন্য বরাদ্দ। উপায় না থাকায় পাঁচটি শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পাঠদান করা হয় কক্ষের সামনের বারান্দায় এবং দ্বিতীয় তলার সিঁড়ি ও ছাদের সিঁড়ির কক্ষে। এতে পাঠদান দূরের কথা, শিক্ষার্থীদের ঠিকমত বসানোও যায় না বলে জানান শিক্ষকরা।

সিঁড়িতে বসে গণিতের ক্লাসের পাঠ নিচ্ছিল তৃতীয় শ্রেণির ফরিদা আক্তারসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী। বোর্ডে শিক্ষক কিছু একটা লিখে বুঝিয়ে দিচ্ছেন ঠিকই, কিন্তু তারা তা খাতায় তুলতে পারছে না। কারণ, সিঁড়িতে বসায় সামনে কোনো বেঞ্চ নাই। এভাবে প্রতিদিনই তাদের পাঠ নিতে হয় বলে জানায় এই শিক্ষার্থী।

প্রধান শিক্ষক শামীম আরা বেগম বলেন, ২০১১ সালে এ বিদ্যালয়ে যোগদানের পর বিদ্যালয়ের একমাত্র ভবনের অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ দেখে কর্তৃপক্ষকে তখন থেকেই লিখিতভাবে জানিয়ে আসছেন। কিন্তু কাজ হচ্ছে না।

নোয়াখালী জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম বলেন, সিঁড়ি ও বারান্দায় পাঠদানের বিষয়টি তার জানা নেই। তিনি শিগগিরই বিদ্যালয়টি পরিদর্শনে যাবেন এবং বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজরে আনার জন্য যা যা করার দরকার তিনি তা করবেন।