কমেনি বিআরটিএর দুর্নীতি

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯ | ৭ কার্তিক ১৪২৬

কমেনি বিআরটিএর দুর্নীতি

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি ২:৫৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯

print
কমেনি বিআরটিএর দুর্নীতি

বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) লক্ষ্মীপুর কার্যালয়ের দুর্নীতি লাগামহীন। ড্রাইভিং লাইসেন্স ও মোটরসাইকেলের রেজিষ্টেশন ওই কার্যালয়ে সরাসরি করা যাচ্ছে না। দালাল অথবা শো-রুমের লোকজনই একমাত্র ভরসা। এতে ক্ষুদ্ধ হচ্ছে সেবাগৃহীতারা। এদিকে, সরাসরি রেজিষ্টেশন করতে না দিয়ে দালালদের মাধ্যমে মোটা অঙ্কের টাকা আদায় করছে লক্ষ্মীপুরে বিআরটিএ’র কর্মকর্তারা।

রেজিস্ট্রেশন করতে আসা আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ব্যাংক ড্রাপসহ প্রয়োজনীয় সব কাগজপত্র ঠিক করে বিআরটিএ এনেছি, তারপরও বলছে শো-রুমের মাধ্যমে লাইসেন্স করাতে। মোটরযান পরিদর্শক জাহাঙ্গীর নিজেই বলছে শো-রুমে কিছু অতিরিক্ত টাকা লাগবে। বিআরটিএ লক্ষ্মীপুর কার্যালয়ে সরাসরি কোন লাইসেন্স করা হয় না বলেও অভিযোগ করেন মামুন।

ভুক্তভোগিরা জানান, ড্রাইভিং লাইসেন্স ও মোটরসাইকেলের রেজিষ্টেশন ওই কার্যালয়ে সরাসরি করা যায় না। টাকার বিনিময়ে সহজেই লাইসেন্স ও রেজিষ্টেশন করা হয়। তবে দুদক একাধিকবার অভিযান চালালেও কমছে না এ অনিয়ম।

মোটরযান পরিদর্শক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমাদের কার্যালয়ে সহকারী পরিচালক নেই। মোটরসাইকেলের লাইসেন্স সরাসরি করতে হলে নতুন স্যার আসলে যোগাযোগ করতে হবে। তিনি কবে যোগদান করেন তাও ঠিক নেই বলে জানান তিনি।