সীমান্ত হাটে ধর্মঘট

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ১ আশ্বিন ১৪২৬

সীমান্ত হাটে ধর্মঘট

ফেনী প্রতিনিধি ৪:৫৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৫, ২০১৯

print
সীমান্ত হাটে ধর্মঘট

ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের মোকামিয়া গ্রামে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত হাট ভারতীয় ব্যবসায়ীদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট কর্মসূচির কারণে বন্ধ রয়েছে। গত মঙ্গলবার সীমান্ত হাটের ভারতীয় ব্যবসায়ীরা তাদের সকল পণ্য অনির্দিষ্ট পরিমাণে বিক্রি সুবিধা দেওয়াসহ বিভিন্ন দাবিতে দোকান বন্ধ রেখে ধর্মঘট কর্মসূচির ডাক দেয়।

এছাড়া সারাদিন হাটের বাইরের গেটে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে তারা। ফলে সীমান্ত হাটে ভারতের কোনো ক্রেতা প্রবেশ করতে পারেনি। বাংলাদেশের ক্রেতা-বিক্রেতারা সীমান্ত হাটে গিয়ে হতাশ হয়ে ফেরত আসে।

ভারতীয় ব্যবসায়ীরা হাটে বিক্রির জন্য নির্ধারিত পণ্যের বাইরেও বহু পণ্য বাজারে নিয়ে আসেন। বাংলাদেশ অংশে কোন কড়াকড়ি না থাকায় জেলা শহরসহ নানা স্থানের ক্রেতারা বিপুল পরিমাণ ভারতীয় পণ্য পাইকারি ও খুচরা দরে কিনে বাংলাদেশে নিজেদের দোকানে মওজুদ করে বিক্রি করে থাকে।

এসব বিষয়গুলি গত বেশ কিছুদিন থেকে বাংলাদেশী স্থানীয় প্রশাসন অবহিত হওয়ার পর সীমান্ত হাটের গেটে কর্তব্যরতদের সতর্ক করা হলে তালিকা বহির্ভূত এবং অতিরিক্ত পণ্য আনা বন্ধ হয়ে যায়। ফলে ভারতের পণ্য বিক্রি কমে যায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ধর্মঘট কর্মসূচি পালন শুরু করে।

ফেনী জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজজামান বলেন, আমাদের অংশে নীতিমালা অনুযায়ী হাট চলছে। তাদের নিকট থেকে আমরা কোন প্রকার অভিযোগ পাইনি। কী জন্য তারা ধর্মঘট শুরু করেছে তা আমরা জানি না।

সীমান্ত হাট ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এনামুল করিম সোহেল বলেন, ভারতীয় ব্যবসায়ীরা অযৌক্তিক দাবিতে ধর্মঘট শুরু করেছে। বাজারের নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে তারা ব্যবসা করতে চায়। অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের ডাক দিয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করায় গত মঙ্গলবার সীমান্ত হাটে কোন প্রকার বেচাকেনা হয়নি।

এ প্রসঙ্গে বিজিবির মধুগ্রাম কোম্পানি কমান্ডার আবদুর রহমান বলেন, আমাদের দায়িত্ব হাটের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। ধর্মঘট বিষয়ে সীমান্ত হাট ব্যবস্থাপনা কমিটি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।