গরুরহাট পর্যবেক্ষণে ড্রোন

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গরুরহাট পর্যবেক্ষণে ড্রোন

চট্টগ্রাম ব্যুরো ১২:০৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০৪, ২০১৯

print
গরুরহাট পর্যবেক্ষণে ড্রোন

চট্টগ্রামে কোরবানির হাট পর্যবেক্ষণে প্রথমবারের মতো ড্রোন ব্যবহারের পরিকল্পনা করেছে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ (সিএমপি)। গতকাল শনিবার দামপাড়া পুলিশ লাইন্সের কনফারেন্স রুমে সংবাদ সম্মেলনে ঈদুল আজহাকে ঘিরে নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন প্রস্তুতির তুলে ধরার সময় এ কথা জানানো হয়।

সিএমপি কমিশনার মাহবুবর রহমান বলেন, প্রতিটি গরুর হাটে আমাদের কন্ট্রোল রুম থাকবে। ওয়াচ টাওয়ার এবং সিসি ক্যামেরাও থাকবে। নতুন সংযোজন হলো ড্রোন।

গরুর হাটে ড্রোন ব্যবহার করে পর্যবেক্ষণ করা হবে। কোরবানির পশু পরিবহন ও হাটকে ঘিরে যাতে কোনো ধরনের চাঁদাবাজি করা না হয়, সে বিষয়ে হুঁশিয়ারি দেন তিনি। মাহবুবর রহমান বলেন, দুষ্কৃতকারী কোনো সমিতি বা সংগঠনের নামে চাঁদাবাজি করার কেউ সাহস করবেন না। সড়কে গরুবাহী ট্রাকগুলোকে তল্লাশি থেকে ছাড় দেওয়ার কথাও জানান সিএমপি কমিশনার।

ঈদকে ঘিরে নগরীর নিরাপত্তায় পোশাকধারী পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি, গোয়েন্দা বিভাগ, বিশেষ শাখা, এনএসআই ও ডিজিএফআইসহ অন্যান্য সংস্থার সহযোগিতা নেওয়ার পাশাপাশি বোম ডিসপোজাল ইউনিট ও কাউন্টার টেররিজম বিভাগকে ‘স্ট্যান্ডবাই’ রাখা হবে বলেও জানান তিনি। যাত্রী ও গরু ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তায় বাস টার্মিনাল, রেলস্টেশন ও লঞ্চঘাটের নিরাপত্তার জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা আছে বলেও জানান সিএমপি কমিশনার।

এদিকে নগরীর বিমানবন্দর সড়কে দুটি বাজার ইজারা না দিতে সিএমপির পক্ষ থেকে অনুরোধ জানিয়ে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে চিঠি দেওয়া হলেও বাজার দুটি ইজারা দিয়েছে সিটি করপোরেশন। এ বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে মাহবুবর বলেন, সিটি করপোরেশনকে আহ্বান করেছিলাম বিমানবন্দরমুখী দুটি বাজার স্টিলমিল ও সল্টগোলা যেন ইজারা দেওয়া না হয়।

তিনি বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য, ঠিক সে জায়গায় না হলেও পার্শ্ববর্তী দুটি জায়গায় ইজারা দেওয়া হয়েছে। যেটি তুলনামূলক কম হলেও বিমানবন্দর সড়কে বিশৃঙ্খলা তৈরি করবে। যানবাহনের শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব শুধু পুলিশের নয়। সড়ক ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব সিটি করপোরেশনেরও। আশা করি, ইজারাদাররা সিটি করপোরেশন নির্ধারিত চৌহদ্দি মেনে ভিতরে থাকবেন।

নগরীতে যত্রতত্র অবৈধ গরুর বাজার বসানোর বিষয়ে জানতে চাইলে সিএমপি কমিশনার মাহবুব বলেন, অবৈধ বাজার বন্ধে আমরা তৎপর থাকবো। ইতোমধ্যে সাগরিকা হাটের সামনে একটি জায়গায় হাটের আকারে বাঁশ-খুঁটি দিয়ে দখল করেছিল। খবর পেয়ে সেটি বন্ধ করার ব্যবস্থা করেছি।

সংবাদ সম্মেলনের আগে ঈদুল আজহা উপলক্ষে হাট ইজারাদার, পরিবহন মালিক সমিতি, চট্টগ্রাম চেম্বার, বিজিএমইএ এবং বিকেএমইএসহ বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন সিএমপি কর্মকর্তারা।