কর্ণফুলী পেপার মিলের ক্ষতি কোটি টাকা

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯ | ৮ শ্রাবণ ১৪২৬

কর্ণফুলী পেপার মিলের ক্ষতি কোটি টাকা

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি ৪:৫২ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৮, ২০১৯

print
কর্ণফুলী পেপার মিলের ক্ষতি কোটি টাকা

কাপ্তাইয়ের চন্দ্রঘোনায় অবস্থিত কর্ণফুলী পেপার মিলস লিমিটেডের (কেপিএম) গ্রিড সাব-স্টেশনে ট্রান্সফরমারের ক্রটির কারণে মিলসহ আবাসিক এলাকা বিদ্যুৎবিহীন রয়েছে পাঁচ দিন ধরে। বিদ্যুৎ না থাকায় কয়েকদিনে প্রায় কোটি টাকার আর্থিক ক্ষতির মখে পড়েছে প্রতিষ্ঠানটি। বিদ্যুতের কারণে আবাসিক এলাকায় পানি সরবরাহ না থাকাই চলছে হাহাকার। কবে নাগাদ বিদ্যুৎ ঠিক হতে পারে তাও বলতে পারছে না কর্তৃপক্ষ।

মিল সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাত পৌনে ৮টার দিকে কেপিএম গ্রিড সাব-স্টেশনের একটি ট্রান্সফরমার বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে মিলসহ আবাসিক এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। মঙ্গলবার রাত থেকে মিলের উৎপাদন বন্ধের পাশাপাশি বন্ধ রয়েছে আবাসিক এলাকার পানি সরবরাহ।

বিদ্যুৎতের কারণে মোটরচালিত টিউবওয়েল থেকে পানি উত্তোলন করা যাচ্ছে না। যে দুই একটি টিউবওয়েল রয়েছে সেখান থেকেও লাইন ধরে পানি আনতে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে এলাকাবাসীর।

কেপিএমে প্রতিদিন উৎপাদিত হয় প্রায় ২০ টন কাগজ। এতে সাড়ে ৮০০ স্থায়ী অস্থায়ী শ্রমিক কর্মচারী ও কর্মকর্তা উৎপাদন কাজে নিয়োজিত আছেন। কিন্তু বিদ্যুতের কারণে কাগজ উৎপাদন বন্ধ থাকাই তারা বেশির ভাগই অলস সময় কাটাচ্ছেন। এতে প্রতিদিন মিলের ১৫-২০ লাখ টাকা আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে। এ ক্ষতির পরিমাণ গত পাঁচ দিনে কোটি টাকা বলে জানিয়েছে মিল কর্তৃপক্ষ।

কেপিএমের এমডি ড. এম এম এ কাদের জানান, ট্রান্সফরমারের ক্রটির কারণে সমগ্র মিল এলাকা অন্ধকার রয়েছে। মিল বন্ধের পাশাপাশি আবাসিক এলাকাতেও পানি সরবরাহ করা যাচ্ছে না। পিডিবির দুজন প্রকৌশলী এসেছিলেন। তারা বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়ে চলে গেছেন। সে দিকনির্দেশনা মোতাবেক ট্রান্সফরমার ঠিক করার কাজ চলছে। ট্রান্সফরমার চালু হলে আমরা আগের মতো উৎপাদনে যেতে পারবো বলে আশা করছি।