মূল্যস্ফীতি আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ: পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, সোমবার, ৮ আগস্ট ২০২২ | ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

মূল্যস্ফীতি আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ: পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

ইকবাল হোসেন সুমন, নোয়াখালী
🕐 ৯:২৭ অপরাহ্ণ, জুন ২৯, ২০২২

মূল্যস্ফীতি আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ: পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

‘মূল্যস্ফীতিকে বড় চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী প্রফেসর ড. শামসুল আলম। তিনি বলেন, কোভিড পরবর্তী জিনিসপত্রের বর্ধিত চাহিদা এবং তার মধ্যে রাশিয়া ও ইউক্রেন যুদ্ধের জন্য বাংলাদেশ অসহায়ের শিকার হয়েছে। কিন্তু এসব বিষয়গুলো চিন্তায় রেখে দ্রব্যমূল্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য এবারের বাজেট ওইভাবে সাজানো হয়েছে। যাতে করে মূল্যস্ফীতি না বাড়ে।

বুধবার দুপুরে বিশ্ব পরিবেশ দিবস এবং নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইএসডিএম বিভাগের এক দশক পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করছি দ্রব্যমূল্য যতটুকু কমিয়ে রাখা যায়। সে জন্য ভ্যাট-ট্যাক্স কমিয়ে দেওয়া ও সবক্ষেত্রে ভর্তুকি দেওয়াসহ বিভিন্ন ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার গরিবের সরকার। তাই মূল্যস্ফীতি কমিয়ে আনতে আমরা নানা পরিকল্পনা নিয়েছি। দেশ সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী এগিয়ে যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণ করে অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন প্রধানমন্ত্রী। এই সেতু আমাদের আত্মমর্যাদার প্রতীক। নিজের অর্থায়নে এই সেতু করে তিনি সারাবিশ্বে প্রশংসিত হয়েছেন। শিক্ষার্থীদের আদর্শের ধ্রুবতারা হোক শেখ হাসিনা। দক্ষিন এশিয়ায় শিশু মৃত্যুর হার কমেছে। সামগ্রিক উন্নয়নে বাংলাদেশকে শীর্ষস্থানে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সব স্বপ্নের মূলে আছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রতিমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, বিশ্বের সেরা ১হাজারের মধ্যে আমাদের দেশের একটিও নাই এটি দুঃখজনক। আমাদের নাম সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় আসেনা এটা আমাদের জন্য কষ্টের। আমি ৩৫ বছর শিক্ষকতা করেছি। উপাচার্যরা বিভিন্ন চাপের কারণে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না। যিনি ভাল গবেষক তিনিই ভাল শিক্ষক। তাই শিক্ষক-শিক্ষার্থী সবাই মিলে ভালো অবস্থানে যাওয়ার অনুরোধ করেন তিনি।

ইএসডিএম বিভাগের চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ মহিনুজ্জামান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান পৃষ্ঠপোষক ছিলেন, নোবিপ্রবি উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ দিদার-উল-আলম। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) প্রফেসর ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আব্দুল বাকী, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফারুক উদ্দিন, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ হানিফ মুরাদ ও শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর।

আলোচনা সভা শেষে প্রতিমন্ত্রী নোবিপ্রবি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে গাছের চারা রোপন করেন।

 
Electronic Paper