বিছানায় মা-ছেলের লাশ, ফ্যানে বাবা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯ | ৯ কার্তিক ১৪২৬

বিছানায় মা-ছেলের লাশ, ফ্যানে বাবা

নিজস্ব প্রতিবেদক ১০:৩১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১০, ২০১৯

print
বিছানায় মা-ছেলের লাশ, ফ্যানে বাবা

রাজধানীর মিরপুরে একটি ফ্ল্যাট থেকে একই পরিবারের তিনজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে মিরপুর ১৩ নম্বর সেকশনের বি ব্লকের ৫ নম্বর সড়কের ১০ নম্বর বাড়ির একটি ফ্ল্যাট থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়।

প্রতিবেশীরা জানান, এ ফ্ল্যাটে সরকার মো. বায়েজিদ (৪৫) নামে এক ব্যক্তি তার স্ত্রী অঞ্জনা (৪০) ও তাদের উচ্চ মাধ্যমিকপড়ুয়া ছেলে ফারহানকে (১৭) নিয়ে থাকতেন। বায়েজিদের গার্মেন্ট ব্যবসা রয়েছে। তিনি বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছেন। সম্প্রতি ঋণখেলাপির কারণে তার বিরুদ্ধে একটি ব্যাংক মামলা করে।

জানা গেছে, মো. বায়েজিদের বয়স আনুমানিক ৪৫ বছর। তিনি বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা করতেন। ব্যবসার কারণে ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছিলেন। কিন্তু কোনো ব্যবসাতেই লাভ করতে পারেননি।

ঋণ পরিশোধ করতে না পারায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ মো. বায়েজিদের বিরুদ্ধে কাফরুল থানায় মামলা করে। এ নিয়ে হতাশায় ভুগছিলেন বায়েজিদ। কাফরুল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিমুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে ওই বাসায় যাই। প্রতিবেশীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নিহত ব্যক্তির নাম বায়েজিদ ও নারীর নাম অঞ্জনা। তাদের ছেলে মিরপুর কমার্স কলেজের ইন্টারমিডিয়েট প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ফারহান। ওই নারী ও ছেলেটির লাশ বিছানার ওপর পাওয়া গেছে। আর বায়েজিদের লাশ ফ্যানের সঙ্গে ঝোলানো অবস্থায় পাওয়া গেছে। মৃত্যুর কারণ এখনো পরিষ্কার নয়।

মিরপুর ডিভিশনের ডিসি মোস্তাক আহমেদ জানান, ধারণা করা হচ্ছে, বায়েজিদ তার স্ত্রী ও সন্তানকে বিষপানে হত্যার পর নিজে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করতে পারেন। ঋণের কারণে এ ঘটনা ঘটেছে কি-না পুলিশ তদন্ত করে দেখছে।

ওই বাসায় পাওয়া একাধিক চিরকুট পাওয়া গেছে উল্লেখ করে পুলিশ জানায়, বায়েজিদ ব্যবসা করতেন। নানা কারণে ব্যবসায় লস হচ্ছিল। এ অবস্থায় তার মধ্যে হতাশা দেখা দেয়। গত বুধবার রাতের কোনো একসময় স্ত্রী ও সন্তানকে খাবারের সঙ্গে কিছু মিশিয়ে হত্যা করে বায়েজিদ আত্মহত্যা করেন।