বৈরী হাওয়ায় চড়া নিত্যপণ্য

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৫ আশ্বিন ১৪২৬

রাজধানীর বাজারদর

বৈরী হাওয়ায় চড়া নিত্যপণ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক ৮:৫০ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৯

print
বৈরী হাওয়ায় চড়া নিত্যপণ্য

বৈরী আবহাওয়ার প্রভাব পড়েছে রাজধানীর কাঁচাবাজারে। আর গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে নিত্যপণ্য। আগেভাগেই বেশকিছু শীতকালীন সবজি মিললেও দাম নাগালের বাইরে। বৃহস্পতিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজার, মহাখালী, রামপুরা, মালিবাগ, খিলগাঁও, শান্তিনগর, হাতিরপুলসহ কয়েকটি বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, আলু ২০-২৫ টাকা, চাল কুমড়া প্রতি পিস ৩০-৩৫ টাকা, লেবু ২০ থেকে ৩০ টাকা হালি, পুঁইশাক প্রতি আঁটি ২৫-৩০ টাকা, লাল শাক ১৫ টাকা, পালং শাক ১৫ টাকা, মুলা শাক ১৫ টাকা আঁটি বিক্রি হচ্ছে। পাকা টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৪০ টাকায়। গাজর বিক্রি হচ্ছে ৮০-১০০ টাকা কেজি। উস্তের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৭০-৮০ টাকায়। বরবটি বিক্রি হচ্ছে ৬০-৭০ টাকা কেজি। এ সবজিগুলো কয়েক সপ্তাহ ধরেই এমন চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে।

চড়া দামে বিক্রি হওয়া সবজির তালিকায় রয়েছে- পটল, ঝিঙে, ধুন্দল, চিচিংগা, বেগুন, ঢেঁড়শ ও লাউ। চিচিংগা, ঝিঙে, ধুন্দল কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ৬০-৭০ টাকায়। পটল, কাঁকরোল বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকা কেজি। বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকা কেজি। লাউ বিক্রি হচ্ছে ৬০-৭০ টাকা পিস। চড়া দামের এই বাজারে কিছুটা কম দামে বিক্রি হচ্ছে পেঁপে ও মিষ্টি কুমড়া। পেঁপের কেজি পাওয়া যাচ্ছে ২৫-৩০ টাকা।

মিষ্টি কুমড়ার ফালি বিক্রি হচ্ছে ১৫-২০ টাকা। কাঁচামরিচের দাম কমেছে মোটামুটি। ২৫০ গ্রাম কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ১৫-২৫ টাকার মধ্যে। দেশি পেঁয়াজের বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৫০ টাকা কেজি। আর আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা কেজি।

ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১০৫-১১০ টাকায়। সাদা বয়লার মুরগির দাম গত সপ্তাহ থেকে বেড়েছে। কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ১৪০-১৪৫ টাকায়। লাল লেয়ার মুরগি ২১০-২২০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। গরুর মাংস ৫৫০ টাকা এবং খাসির মাংস ৬৫০-৭৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

রুই মাছ বাজার ভেদে বিক্রি হচ্ছে ৩৫০-৪৫০ টাকা কেজি, পাবদা মাছ ৫০০-৬০০ টাকা, শিং মাছ ৫৫০-৭০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৮০-২০০ টাকা ও পাঙ্গাস ১৪০-১৬০ টাকা, সরপুঁটি ১৬০-২০০ টাকা, চাষের কই ১৬০-১৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

প্রতি কেজি মিনিকেট চাল ৫৫ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতি কেজি নাজির শাইল ৫৮ থেকে ৬০ টাকা। স্বর্ণা ৩৫ থেকে ৩৮ টাকা, বিআর ২৮ নম্বর ৪০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। প্রতি কেজি মসুর ডাল (দেশি) ১১০ টাকা, মসুর ডাল মোটা ৮০ থেকে ৯০ টাকা, মুগ ডাল ১২০ টাকা, ভোজ্য তেল প্রতি লিটার খোলা ৯০ টাকায় ও বোতলজাত ১০৮ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।