সবজি চড়া, কমছে মুরগির দাম

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৫ আশ্বিন ১৪২৬

রাজধানীর বাজারদর

সবজি চড়া, কমছে মুরগির দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক ৯:২৬ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৬, ২০১৯

print
সবজি চড়া, কমছে মুরগির দাম

শীতের আগাম সবজি শিমের দাম কিছুটা কমলেও বরবটি, করলা, বেগুনসহ বেশির ভাগ সবজির দাম বেড়েছে। তবে দাম কমেছে বয়লার মুরগির। গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর কারওয়ানবাজার, মহাখালী, রামপুরা, মালিবাগ হাজীপাড়া, খিলগাঁও এবং শান্তিনগরসহ বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

বাজারে শীতের সবজি শিমের দাম সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে কমেছে ৬০ টাকা। বাজার ও মানভেদে শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৪০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ১৮০-২০০ টাকা কেজি।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, যে কোনো সবজি বাজারে নতুন আসলে দাম একটু বাড়তিই থাকে। শীত আসতে এখনো বেশ বাকি আছে। তবে শীতের আগাম সবজি হিসেবে শিম ইতোমধ্যে বাজারে চলে এসেছে। আগাম বাজারে আসায় এ সবজিটির দাম চড়া। মাস দুয়েক পর শিমের দামে অনেক কমে যাবে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, পাকা টমেটোর কেজি আগের সপ্তাহের মতো বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৪০ টাকায়। গাজরের দামও অপরিবর্তিত রয়েছে। গাজর বিক্রি হচ্ছে ৮০-১০০ টাকা কেজি। তবে সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বেড়েছে করলা, বরবটি, বেগুনের। করলার কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০-৯০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ৫০-৬০ টাকা কেজি। গত সপ্তাহে ৬০-৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া বরবটির দাম বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৮০-৯০ টাকায়। বেগুনের দাম বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৬০-৭০ টাকা। চড়া দামে বিক্রি হওয়া সবজির তালিকায় রয়েছে- পটোল, ঝিঙা, ধুন্দুল, চিচিংগা, কাঁকরোল, ঢেঁড়স, লাউ।

চিচিংগা, ঝিঙা, ধুন্দুল বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকা কেজি। সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বাড়ার তালিকায় থাকা পটোল বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকা কেজি। কাঁকরোল বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকা কেজি, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪০-৫০ টাকা কেজি। লাউ বিক্রি হচ্ছে ৬০- ৭০ টাকা পিস। তবে বাজারে কিছুটা কম দামে বিক্রি হচ্ছে পেঁপে ও মিষ্টি কুমড়া।

পেঁপের কেজি পাওয়া যাচ্ছে ২৫-৩০ টাকায়। ২৫০ গ্রাম কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ২০-২৫ টাকায়। দেশি পিয়াজের বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৫০ টাকা। আর আমদানি করা পিয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩৫-৪০ টাকা কেজি। ডিমের ডজন গত সপ্তাহের মতো বিক্রি হচ্ছে ১০০-১১০ টাকা। আর সাদা বয়লার মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০-১২৫ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ১৪০-১৫০ টাকা। তবে লাল লেয়ার মুরগি আগের মতো ২০০- ২১০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে।