কঠোর নজরেও ফাঁকা ঢাকায় চুরি-ছিনতাই

ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৩১ ভাদ্র ১৪২৬

কঠোর নজরেও ফাঁকা ঢাকায় চুরি-ছিনতাই

অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেবে পুলিশ

এম কবীর ১০:২৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৭, ২০১৯

print
কঠোর নজরেও ফাঁকা ঢাকায় চুরি-ছিনতাই

ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে ফাঁকা ঢাকায় কয়েকটি স্তরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকলেও ছিনতাই ও চুরির মতো বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। ফাঁকা বাসা ও ভোরবেলা ঢাকায় ফেরত বেশ কিছু মানুষের কাছ থেকে নগদ অর্থ ও মূল্যবান জিনিস ছিনতাই ও চুরির ঘটনা ঘটেছে। তবে ভিকটিমরা কেউ থানা কিংবা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দ্বারস্থ হননি।

অন্যদিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা বলছেন, কঠোর নজরদারির কারণে নগরে তেমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। তাছাড়া ছিনতাই কিংবা চুরির মতো ঘটনায় কোনো ভিকটিমকে এ পর্যন্ত অভিযোগ করতেও দেখা যায়নি।

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বসিলা মেট্রো হাউজিংয়ে দৈনিক খোলা কাগজের সহ-সম্পাদক আবু সাঈদের বাসায় ঈদের দুদিন আগে চুরির ঘটনা ঘটে। জরুরি কাজে বাইরে থাকায় ঘরের দরজা ভেঙে নগদ টাকা, মোবাইল ফোন ও ল্যাপটপ নিয়ে যায় চোর। আবু সাঈদ বলেন, ‘আগস্টের প্রথম সপ্তাহে এই বাসায় নতুন ভাড়াটিয়া হিসেবে উঠেছি। বাড়ির কেয়ারটেকার থাকার পরও কীভাবে বাড়িতে চোরের প্রবেশ ঘটেছে তা বুঝতে পারছি না।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঈদের ছুটিতে বাড়ি যাওয়ার জন্য সব প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিলাম। নগদ টাকা, মোবাইল ফোন ও একটি ল্যাপটপ বাসায় রেখে জরুরি প্রয়োজনে বাইরে যাই। ফিরতে একটু দেরি হওয়ায় বাসায় ফিরে দেখি দরজার তালা ভাঙা এবং ভেতরের সবকিছু এলোমেলো। ঈদের বেতন বোনাসের টাকা ও পরিবারের জন্য কেনাকাটার টাকা, একটি মোবাইল ফোন ও ল্যাপটপ উধাও। পরে বুঝতে পারি চোর প্রবেশ করে দরজার তালা ভেঙে সব নিয়ে গিয়েছে। এরপর বাড়ি যাওয়ার ব্যস্ততায় নিকটস্থ থানায় কোনো অভিযোগ করেননি বলে জানান তিনি।

অন্যদিকে, প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদ করে ঢাকার বাসায় ফেরত আসার সময় গত বুধবার রাত সাড়ে এগারটায় রাজধানীর মতিঝিল এলাকায় ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন সুমন নামে এক বেসরকারি চাকরিজীবী।

তিনি বলেন, ‘বুধবার রাতে গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনা থেকে ট্রেনে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে নেমে সিএনজি করে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরের দিকে যাচ্ছিলাম। মতিঝিল দিয়ে যাওয়ার সময় হঠাৎ করে একটি প্রাইভেটকার থেকে দুজন লোক সিএনজি থামিয়ে অস্ত্র দেখিয়ে নগদ কিছু টাকা ও স্যামসাং জে-৭ ও সিম্ফনি মোবাইল দুটি ছিনিয়ে নেয়।’ থানায় গেলে আরও হয়রানির শিকার হবে ভেবে তিনি কোনো অভিযোগ দাখিল করেননি।

একইভাবে রাজধানীর কলাবাগান, সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল ও মালিবাগ মোড়ে ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছেন বেশ কয়েকজন ঈদ ফেরত যাত্রী।

এই বিষয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশনস বিভাগ) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার মো. ওবায়দুর রহমান বলেন, ঢাকা মেট্রোতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কড়া নিরাপত্তার কারণে বড় ধরনের কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। চুরি, ছিনতাই বা ডাকাতির মতো ঘটনা যাতে না ঘটে তার জন্য প্রতিটি মহল্লা ও ফ্ল্যাটবাড়ির মালিকদের সঙ্গে সমন্বয় করে পুলিশ নিরাপত্তা বজায় রেখেছে। তারপরও যদি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ফাঁকি দিয়ে কোনো ঘটনা ঘটে তার অভিযোগ পেলে অবশ্যই তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে পুলিশ।