অধ্যক্ষের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০১৯ | ৫ বৈশাখ ১৪২৬

অধ্যক্ষের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক ৩:০০ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯

print
অধ্যক্ষের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে

রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডে নিজের ফ্লাটে নিহত ইডেন মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীনের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়।

সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) পারভীনের মরদেহের ময়নাতদন্ত শেষে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) ফরেনসিন বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ এ তথ্য জানিয়ে বলেন, মৃত নারীর ঠোঁটে, মুখে, আঙুলে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। একটা আঙুল ভাঙা ছিল। তাকে মুখ চেপে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এ হত্যাকাণ্ড একজনের পক্ষে সম্ভব না। একাধিক ব্যক্তি এ হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে।

নিহতের সুরতহাল প্রতিবেদনে নিউমার্কেট থানা পুলিশ উল্লেখ করেছে, ‘মরদেহের মুখে রক্ত দেখা যায়, হাতের কয়েকটি আঙুলে কালো দাগ আছে। রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার মধ্যে স্বামী ও সন্তানরা বাসায় না থাকায় বাসার কাজের মেয়ে ও অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিরা তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করতে পারে।’

প্রসঙ্গত, গতকাল রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নিজ বাসায় খুন হন মাহফুজা চৌধুরী পারভীন। এরপর ওই বাসা থেকে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে। এলিফ্যান্ট রোডের সুকন্যা টাওয়ারের বাসায় থাকতেন তিনি। এ ঘটনার পর তার বাসার দুই গৃহকর্মী স্বপ্না ও রেশমা পালিয়ে যায়। পুলিশ খুনি হিসেবে প্রাথমিকভাবে তাদের সন্দেহ করছে। মাহফুজার স্বামী ইসমত কাদের গামা এ ঘটনায় পলাতক দুই গৃহকর্মীকে আসামি করে মামলা করেছেন।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপির) রমনা বিভাগের উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরদার তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তিনজনকে ধরতে তৎপরতা চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। পুলিশ ছাড়াও র‌্যাব ঘটনার তদন্ত করছে।