ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১৯ মাঘ ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

সিত্রাংয়ের প্রভাব রাজধানীতে দিনভর বৃষ্টি

আরিফ জাওয়াদ
🕐 ৮:৪২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০২২

সিত্রাংয়ের প্রভাব রাজধানীতে দিনভর বৃষ্টি

ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের প্রভাবে রাজধানীতে ভোর থেকে দিনভর বৃষ্টি ঝরছে, সাথে দমকা হাওয়া। কর্মদিবস হওয়াতে দিনের শুরুতেই ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে অফিসগামী মানুষদের, সেইসঙ্গে শিক্ষার্থীরাও এ ভোগান্তির বাইরে ছিলেন না।

সোমবার (২৪ অক্টোবর) সারাদিনই রাজধানী জুড়েই ছিল গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি ও দমকা বাতাস। যার কারণে ছিল না পর্যাপ্ত যানবাহন। বাস না পেয়ে ছাতা হাতে নিয়ে কেউ রিকশা কিংবা রাইড শেয়ারিং অ্যাপই যেন ছিল রাজধানীবাসীর শেষ ভরসা। ফেরার পথেও ভোগান্তির কমতি ছিল না।

তেমনই ভোগান্তির কথা বলছেন রাজধানীর নিউমার্কেটের একটি বেসরকারি ব্যাংকে কর্মরত সাইফুল ইসলাম, যাবেন বনানিতে। ঘণ্টাখানেক দাঁড়িয়ে থাকার পর মেলে বাস তারপরে সেই বাসে করে গন্তব্যে পাড়ি জমান। তিনি জানান, ‘অফিসে আসার সময়েও এমন ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হয়েছিল। বাধ্য হয়ে মোটর সাইকেল (রাইড শেয়ারিং) করে আসতে হয়েছে। আবার বাসার ফেরার পথেও বাসের জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষা। অন্যান্য দিনগুলোতে যানজটে একবার ভোগান্তি হত, বৃষ্টি-বাদলাতে আজ দু’বার ভোগান্তিতে পড়লাম।’

দোকান খোলা, নেই ক্রেতা: রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রীর দোকান বাদ দিয়ে অধিকাংশ দোকানেই ক্রেতা শূন্য। অন্যন্য দিনগুলোতে নিউমার্কেট এলাকায় ক্রেতা-বিক্রেতার দর কষাকষিতে ব্যস্ত থাকত। সেখানে এমন বৈরি আবহাওয়াতে দোকান খোলা থাকলেও ক্রেতা শূন্য। বৃষ্টি ও দমকা বাতাসে ফুটপাত দোকান শূন্য রাজধানী! নিউমার্কেটের ভেতরে গিয়ে দেখা যায়, ভেতরে যেসব অস্থায়ী কাপড়সহ অন্যান্য পণ্যে দোকান ছিল সেই দোকানই পলিথিনে মোড়া। কেউ বা পাশে দাঁড়িয়ে, পলিথিনের উপরে জমা পানি ফেলে দিচ্ছেন।

মো. আসলাম নামে এক কাপড় ব্যবসায়ীর সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, ‘বৃষ্টি যেন কাপড় না ভেজে সেজন্য এসেছি। তাছাড়া এমন দিনে কি আর এমন দিনে কি মানুষ কিনতে আইবো।’

বই বিক্রিতে ভাটা: নীলক্ষেতের বইয়ের দোকানগুলোতে টুকটাক বেঁচা-বিক্রি চললেও অন্যন্য দিনের মত লোক সমাগম নেই। এদিকে বৃষ্টির কারণে বসে নি ফুটপাতের কোন বইয়ের দোকান।

তবুও বৈরি আবহাওয়াতে ফুটপাতে বই ও পত্রিকা বিক্রি করছেন মো. সিরাজুল ইসলাম। দোকানের উপরে পলিথিন দিয়েছেন, তবুও টিপটিপ করে পানি পড়ছে। কখনো লাঠি দিয়ে পানি ফেলে দিচ্ছেন, কখনো বা কাপড় দিয়ে বইয়ে পড়া পানি মুছছেন। সিরাজুল জানান, ‘বেঁচা-বিক্রি নাই, তারপরও আল্লাহর রহমতে হাজার পার বিক্রি করছি।’

জমেছে হাঁটু পানি: সারাদিনের দীর্ঘ বৃষ্টিতে রাজধানীর রাস্তাতে জমেছে হাঁটু পানি। হুটহাট ইঞ্জিনে পানি প্রবেশ করে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এদিকে রাস্তায় পানি জমাতে বড় যানবাহনে গুলো চলাতে সৃষ্টি হচ্ছে আরেক ভোগান্তি। ঢাকা কলেজের সামনের রাস্তায় তেমনই ভোগান্তি চোখে পড়ে। রাস্তায় জমা পানিতে যে না গাড়ি নামছে ; সৃষ্টি হচ্ছে স্রোত। স্রোত গিয়ে আঁচড়ে পড়ছে দোকানে কিংবা পথচারীর গায়ে। যার কারণে পানি বন্দি হয়ে পড়ছে দোকানগুলো। তেমনি একটি দোকানের কর্মচারী মে. রিয়াদ। দোকানে পানি প্রবেশ করছে, আবার সেগুলো পানি বের করে দিচ্ছে।

কবে কমবে বৃষ্টির রেশ: ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের প্রভাবে সোমবার সারা দেশেই বৃষ্টি হচ্ছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, রাজধানীতে আজ সারা দিনই বৃষ্টি হবে এবং আগামীকাল মঙ্গলবারও হবে। এরপরদিন বুধবার বৃষ্টির রেশ কিছুটা কমে আসবে। এ ছাড়াও আগামী ৪৮ ঘণ্টায় দেশের অধিকাংশ জায়গায় ভারি থেকে অতি ভারি বৃষ্টির হতে পারে বলে, জানা যায়।

 
Electronic Paper