বরিশালে ইলিশের বাজার চড়া

ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯ | ৩০ কার্তিক ১৪২৬

বরিশালে ইলিশের বাজার চড়া

বরিশাল ব্যুরো ২:৪৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৩, ২০১৯

print
বরিশালে ইলিশের বাজার চড়া

দুর্গাপূজা উপলক্ষে ভারতে ইলিশ রফতানির বিশেষ অনুমতি দেওয়ায় বরিশালের পোর্ট রোড পাইকারি বাজারে ইলিশের দর অনেকটাই বেড়ে গেছে। চাহিদার প্রায় ১৪ হাজার মণের বিপরীতে প্রায় দুই হাজার মণ ইলিশ বরিশাল থেকে ভারতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে ভরা মৌসুমে ইলিশের আমদানি চার থেকে পাঁচগুণ বাড়লেও বাজার দর তেমনটা কমেনি। যার কারণে স্থানীয় সাধারণ ক্রেতারা ইলিশ কিনতে হিমসিম খাচ্ছেন। জানা গেছে, ২০১২ সালের জুনে ইলিশ রফতানি বন্ধ ঘোষণার পর বরিশালে নগরীর পোর্ট রোডের মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে ইলিশ সরবরাহ কমতে থাকে। তবে সরকার এক সপ্তাহের জন্য ভারতে রফতানির ঘোষণা দেওয়ায় এই কেন্দ্রে ইলিশের আমদানি অনেক বেড়েছে। এখানে এক কেজি সাইজের ইলিশ ৯৫০ টাকা কেজি, রফতানি যোগ্য সাইজ ৬০০-৯০০ গ্রাম ইলিশ ৭৫০ টাকা আর আধা কেজির ইলিশ পাঁচশ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে ইলিশ ক্রেতা মোবারক হোসেন জানান, গত ৪/৫ দিন আগেও ইলিশের দাম সহনীয় ছিল। এখন ইলিশের দর অনেক বেড়ে গেছে, কেনার সাধ্য নেই। আবার ইলিশের দর বাড়ার কারণে অন্য মাছের দরও বাড়তি।

ব্যবসায়ী ইয়ার হোসেন বাচ্চু বলছেন, ভারতে ইলিশ রফতানি হলে তাদের সুবিধা হয়। তবে স্বল্প সময়ের জন্য আর মাত্র একজন এজেন্টকে ইলিশ রফতানির সুযোগ দেয়ায় তাদের খুব একটা লাভ হবে না।

মৎস্য আড়ৎ অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি অজিত কুমার দাস বলেন, ইলিশ রফতানিতে ব্যবসায়ীদের অসুবিধা নেই। পূজা উপলক্ষে প্রতিবছর ইলিশের বাজার চড়া থাকে। এবারও ক্রেতাদের বাড়তি দামে ইলিশ কিনতে হচ্ছে।

মৎস্য কর্মকর্তা ড. বিমল চন্দ্র দাস বলেন, রফতানি হলে দাম বৃদ্ধি পায়। এতে করে জেলেদের সুবিধা হয় এবং তাদের জীবনযাত্রার মান উন্নত হয়। ইলিশের উৎপাদন আরও বৃদ্ধি পেলে দাম স্থানীয় ক্রেতাদের সাধ্যের মধ্যে চলে আসবে বলে জানান এই কর্মকর্তা।