এমপি-চেয়ারম্যান দ্বন্দ্বে উন্নয়নে শঙ্কা

ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ | ১ কার্তিক ১৪২৬

এমপি-চেয়ারম্যান দ্বন্দ্বে উন্নয়নে শঙ্কা

ঝালকাঠি-১ আসন

শফিউল আজম টুটুল, ঝালকাঠি ১২:২৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৯

print
এমপি-চেয়ারম্যান দ্বন্দ্বে উন্নয়নে শঙ্কা

ঝালকাঠিতে সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যান দ্বন্দ্বে উন্নয়ন ব্যাহত হওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। গত উপজেলা নির্বাচনের পর থেকে ঝালকাঠি-১ আসনের সংসদ সদস্য বজলুল হক হারুনের সঙ্গে রাজাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মনিরউজ্জামান ও কাঁঠালিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মো. এমাদুল হক মনিরের দ্বন্দ্ব চলছে।

বিগত উপজেলা নির্বাচনে বিএইচ হারুন সমর্থিত চেয়াম্যান প্রার্থীদের পরাজিত করে নৌকা প্রতীক নিয়ে এ দুই উপজেলার চেয়ারম্যানরা বিজয়ী হন।

এদিকে উপজেলা নির্বাচনের নয় মাস পরে ১৯ সেপ্টেম্বর বজলুল হক হারুন রাজাপুরে নিজ এলাকায় আসলে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানায়। ওইদিন তার বাড়িতে একটি সমাবেশ করলেও সেখানে রাজাপুর ও কাঁঠালিয়া উপজেলা চেয়ারম্যানরা উপস্থিত ছিলেন না। এ সময় রাজাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিএইচ হারুন সমর্থিত বিদ্রোহী প্রার্থীরা নির্বাচনে হেরে গেলেও তিনি এখনও সরকারি বরাদ্দ সেই বিদ্রোহী প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের দিয়ে ভাগবাটোয়ারা করান। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে রাজাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরউজ্জামানও স্বাক্ষর করেন।

এমপির সঙ্গে দ্বন্দ্বে উন্নয়ন ব্যাহত হওয়ার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রাজাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মনিরউজ্জামান খোলা কাগজকে বলেন, এমপির সঙ্গে দূরত্বের কারণে কিছুটা অসুবিধা তো হচ্ছেই। এখন দূরত্ব দূর করার জন্য যে কোনো পক্ষকে এগিয়ে আসতে হবে। তবে যারা এজন্য দায়ী তাদেরকেই আগে ভূমিকা নিতে হবে।

এ ব্যাপারে এমপি বজলুল হক হারুনের সঙ্গে যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তার ভাই গালুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুল হক কামাল বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যানদের সঙ্গে এমপির দ্বন্দ্বের অবসান হচ্ছে। শিগগিরই সবাই একসঙ্গে বৈঠকে বসবেন। এ ব্যাপারে যোগাযোগ চলছে।