পাউবোর জমি বেহাতের শঙ্কা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯ | ৬ চৈত্র ১৪২৫

পাউবোর জমি বেহাতের শঙ্কা

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি ১:৪০ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৫, ২০১৯

print
পাউবোর জমি বেহাতের শঙ্কা

পটুয়াখালীর কলাপাড়া সার্কেলের পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) শত কোটি টাকার জমি একের পর এক বেহাত হয়ে যাচ্ছে। তিন-চার বছরের লিজ নিয়ে সেসব জমিতে তোলা হচ্ছে একের পর এক স্থাপনা। এমনকি বন্যা নিয়ন্ত্রণ বেড়ি বাঁধের স্লোপেও গড়ে তোলা হয়েছে পাকা স্থাপনা।

এসব জমির খাজনা প্রতিবছর পাউবো পরিশোধ করলেও তা রক্ষায় নেই কোনো কার্যকর উদ্যোগ। ফলে শত শত কোটি টাকা মূল্যের সরকারি জমি স্থায়ীভাবে বেহাত হওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, লতাচাপলী মৌজার জেএল নং ৩৪-এর এক ও ১২২৭ খতিয়ানের ৫১৭৮ নম্বর দাগের ১২ একর ৯৬ শতক জমিতে প্রায় নয় বছর আগেও ছিল পাউবোর সাইনবোর্ড। যেখানে লেখা ছিল পাউবোর অধিগ্রহণকৃত সরকারি সম্পত্তি। বর্তমানে সেখানে তালগাছটি থাকলেও হদিস নেই সাইনবোর্ডের। জমির চারদিকসহ ভেতরে তোলা হয়েছে বিভিন্ন ধরনের স্থাপনা। স্থানীয়দের অভিযোগ কয়েকদিন পর দাঁড়িয়ে থাকা তালগাছও কেটে ফেলবে দখলবাজরা।

একই দৃশ্য কুয়াকাটার শূন্য পয়েন্ট থেকে পশ্চিম দিকের। বেড়িবাঁধের ভেতরে প্রায় ১৩ একর জমির মালিকানার সাইনবোর্ড উধাও হয়ে গেছে। যে জমির এক শতকের দাম কমপক্ষে দশ লাখ টাকা।

এমনকি কলাপাড়া পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশল অফিসের পেছনে তোলা হয়েছে বহু পাকা স্থাপনা। অবৈধ এ স্থাপনা উচ্ছেদে ২০১৮ সালের মে মাসে তালিকা করা হয়েছে। কিন্তু আজ অবধি নেওয়া হয়নি কোনো কার্যকর ব্যবস্থা।

পাউবো কলাপাড়া সার্কেলের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী রবিন কুমার দাস জানান, জীবন ও সম্পদ রক্ষায় পাউবোর অধিগ্রহণ করা সরকারি জমি পর্যায়ক্রমে উদ্ধার করা হবে।