ভোম্বল

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১ | ৭ বৈশাখ ১৪২৮

ভোম্বল

সুজন সাজু ১২:২৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ০৯, ২০২১

print
ভোম্বল

ঘর থেকে বের হতেই ভোম্বল পিছন থেকে ডাক দিল- ‘দাদা কোথায় যাচ্ছেন?’
তাকিয়ে দেখি ভোম্বল- ‘তোকে তো দেখা যায় না এখন। থাকিস কোথায়?’
‘যাবো আর কই!’
‘তুই তো দেখি সুন্দর হয়ে গেছিস!’

খুশিতে ভোম্বল দাঁত কেলিয়ে হাসে- ‘আমি কি কম সুন্দর? না, একদম না!’
আরেকটু উসকে দিয়ে বলি, ‘তোর চেহারা শাহরুখ খানের চেয়ে সুন্দর। ইন্ডিয়ার লোকেরা সুন্দর চেনে নাকি?’
ভোম্বল হাসে- ‘হ দাদা, ঠিকই কইছেন।’
‘দাঁড়া, তোকে নিয়ে কিছু একটা করতে হবে।’
‘দাদা এখন দেখি সবাই ফেসবুক চালায়। তোমার ফেসবুকে আমার একটা ছবি দাও না! আমি যে সুন্দর হক্কলে বুঝব।’
‘তোর তো জবর বুদ্ধি! এত বুদ্ধি পাস কই?’
‘হক্কলে কয় আমার বুদ্ধি নাই। আর তুমি কও বুদ্ধি আছে! খুব ক্ষিদে পেয়েছে। কিছু খাওয়ান দাদা।’
‘কী খাবি, চল দোকানে।’
দুজনেই পা বাড়াই সামনে। দোকানের সামনে গিয়ে ভোম্বল বলে, ‘আমি ঠাণ্ডা খামু!’
‘তোর না কাশি আছে?’
‘একটা খেলে কী হবে! মেডিকেলে ফ্রি ওষুধ দেয়!’
‘ঠাণ্ডা খাবি, ভালো কথা। মানিব্যাগ যে আনি নাই!’
ভোম্বল মুখটা কালো করে ফেলে। দেখে বলি, ‘একটা কাজ কর, তোর ভাবির কাছ থেকে মানিব্যাগটা নিয়ে আয়। দুইটা ঠা-া খাওয়াব!’
‘একটা জোটে না আবার দুইটা!’
ভোম্বল দৌড়ে দৌড়ে এসে বাড়িতে পৌঁছাল। গেট খুলে দেখে ঘরের দরজায় ইয়া বড় একটা তালা। হতাশ ও হতভম্ব ভোম্বল চিল্লায়- ‘হায় রে ঠাণ্ডা, অনেক দৌড়ালি, ঠাণ্ডার বদলে গরম খাওয়ালি! দুনিয়াতে ভোম্বলদের সবাই এমনই ধোঁকা দেয়। দুনিয়াই স্বার্থপর, ভোম্বলরা নয়!’