রকমফের ঝগড়ার

ঢাকা, সোমবার, ১ মার্চ ২০২১ | ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭

রকমফের ঝগড়ার

অভিজিত বড়ুয়া বিভু ১:৫৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০২১

print
রকমফের ঝগড়ার

ঝগড়াঝাটি না হলে কী
জমে আর প্রেম,
প্রেমপিরীতি দুইপক্ষে
এক তরফা নয় গেম।

টোনাটুনির সংসার। ঢাকায় সাবলেট এক রুমের বাসায় বসবাস। দুজনের সঙ্গে প্রায়ই টুকটাক ঝগড়া হয়। দরজা আটকানো ঢাকা শহরে কে কার ঝগড়ার খবর রাখে। সেদিন হঠাৎ টোনাটুনির তুমুল ঝগড়া। টোনা টুনিকে উত্তম মাধ্যম প্রহার করতে করতে রুম থেকে সিঁড়ি পর্যন্ত বের করে আনল। এবং রেগেমেগে টুনিকে বলল, ‘যেতেও পারবি না, থাকতেও পারবি না।’

শেষবারের মতো তোকে কথাটি বলে রাখলাম। টোনাটুনির ঝগড়া দেখে আশপাশের ভাড়াটিয়ারা অবাক। ‘যেতেও পারবি না থাকতেও পারবি না।’ এ কেমন কথা? টুনি বেচারির তাহলে কোথায় ঠাঁই হবে! জনৈক ভাড়াটিয়া টোনাকে বলল, ‘ঝগড়া করছ ভালো কথা। করতেই পার। কিন্তু ‘যেতেও পারবি না থাকতেও পারবি না।’ টুনিকে তুমি এটা কী বলছ। যদি পারো তো ঝগড়ার বাক্য পাল্টাতে পারো। বলতে পারো অন্যভাবে...। টোনা বলল কী বলেন! আমি কী এমন কথা বললাম? টোনার কথায় টুনি ফিক করে হেসে দিয়ে বলল, ‘বাসায় চলো তো। ঝগড়া করতে না জানলে কে বলল মানুষ হাসানো ঝগড়া করতে।’ তারপর টোনাটুনি এক রুমের বাসায় ফিরে গেল। অবশেষ অন্য ভাড়াটিয়ারা একে অন্যের চেহারা দেখাদেখি করে বলল, ‘এ তো দেখছি, পুরান পাগলে ভাত পায় না।
নতুন পাগলের আমদানি!