ভার্চুয়াল হাটে পশুর ভাবনা

ঢাকা, রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১১ আশ্বিন ১৪২৭

ভার্চুয়াল হাটে পশুর ভাবনা

সুজন মজুমদার ২:৩৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৮, ২০২০

print
ভার্চুয়াল হাটে পশুর ভাবনা

সংকটকালে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে খোলা হয়েছে ভার্চুয়াল গরুর হাট। কোরবানির আগের এ সময়ে হাটে-ঘাটে-মাঠে থাকে যানজট, দালালদের খপ্পর, ছিনতাইয়ের ভয়, জাল টাকা ইত্যাদি নানা ঝক্কি ঝামেলা। পাশাপাশি করোনা ভয়। এসব ঝক্কি এড়াতে ক্রেতা-বিক্রেতারা ভিড় করছেন ভার্চুয়াল কোরবানির হাটে। পশুরা কী ভাবছে! জানাচ্ছেন সুজন মজুমদার

গরু
১. মানুষ মানুষকে বলত, তোর মাথায় গোবর ছাড়া কিছুই নাই। এই মাথা কোনো কাজে আসবে না। আমাদের গোবরের এত শক্তি, গোবরের মাথা দিয়ে মানুষ ভার্চুয়াল হাট তৈরি করেছে। এখন আমাদের কষ্ট করে কোরবানির হাটে যেতে হয় না, ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকতে হয় না এমনকি হাসিলও দিতে হয় না ক্রেতাদের।
২. দিন শেষে আমাদের এডিটিং করা যায়। ভার্চুয়াল হাটে গরু কিনে ছাগল নিয়ে বাসায় যাবেন না। বউয়ের হাতে মার খাবেন না।

উট
আমাদের সম্পর্কে অনেক ক্রেতার ধারণা নাই। আমাদের দামও অনেক। ভার্চুয়াল হাট হওয়াতে আমাদের সম্পর্কে জানতে পারবে। ধন্যবাদ, ভার্চুয়াল হাট কর্তৃপক্ষকে।

মহিষ
হ্যালো বন্ধুরা, আমি মহিষ বলছি। আমাকে গরু ভাববেন না। ভার্চুয়াল হাঁট আমি পছন্দ করি না। ভার্চুয়াল হাট মানে গৃহবন্দি। আমাদের যখন কোরবানির হাটে নিয়ে যায় তখন শত শত মানুষ দেখতে আসে। কিন্তু ভার্চুয়াল হাটে মজা পাওয়া যায় না।

ছাগল
দাঁড়িয়ে থাকতে থাকতে পায়ে শেকড় গজিয়ে যায়। কেউ আমাদের দিকে চায় না। গরুর হাটে কি ছাগলের দাম আছে! দিনশেষে গিয়ে ভার্চুয়াল হাট আমাদের জন্য স্বস্তি এনে দিয়েছে। এখন আর হাটে গিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে হবে না।

দুম্বা
আমাদের কোরবানি খুবই নগণ্য সংখ্যার লোকজন দিয়ে থাকে। দাম সম্পর্কে জানা নেই অনেকের। ভার্চুয়াল হাটে মানুষ কিনুক আর নাই কিনুক দামটা অন্তত জানতে পারবে।