ইতালিয়ান জামাই

ঢাকা, শনিবার, ৬ জুন ২০২০ | ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ইতালিয়ান জামাই

কামাল আহমেদ ৭:২৫ অপরাহ্ণ, মে ০৪, ২০২০

print
ইতালিয়ান জামাই

বাবা-মা’র একমাত্র মেয়ে কারিনা। রূপে ঠিক কারিনা কাপুর।

এসএসসির ধাপ আর পার করা গেল না। হবেই-বা কী করে, এমন রূপ নিয়ে কি কেউ নিরিবিলি বসে থাকতে পারে? অবসর দেখে জামাই বাবাদের লম্বা লাইন পড়ে গেছে। কী আর করা যায়? লম্বা তালিকায় ইতালিয়ান প্রার্থী ফেভারিট। তাই দেখেশুনে ইতালিয়ান জামাইর কাছেই কারিনার বিয়ে হল। বিয়ের একমাস না যেতেই জামাইকে কোনো এক কারণে ইতালিতে চলে যেতে হল। কারিনা বাবার বাড়িতে চলে এল। কারিনার মা প্রতিবেশীদের কাছে উঠতে বসতে বলেন, আমাদের জামাই ইতালিয়ান! দু’বছর কেটে গেল এভাবেই। হঠাৎ চীন দেশে এক প্রাণঘাতী জীবাণুর খবরে সবাই চিন্তিত। কয়েকদিনেই ইতালি, ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্রসহ অনেক দেশে ছড়িয়ে গেল।

কারিনার জামাই হঠাৎ কাউকে না জানিয়ে দেশে এল। ঢাকা থেকেই আসার কথা জানালে কারিনা আনন্দে দিশেহারা। বলল, তুমি সোজা আমাদের বাড়িতে চলে এসো, তোমার বাড়িতে নয়। বলতে বলতে ফোন নিয়ে গেল মায়ের কাছে। জামাই বলল, ‘আম্মাজান, আমি সোজা আপনাদের বাড়িতেই আসছি।’ ‘এ্যা, এ্যা, জি বাবা... না বাবা। বাবা, তুমি কো-কোন দেশ থেকে আসছ?’ ‘আম্মা, আপনার কী হল, আমি কোন দেশে থাকিÑ ভুলে গেলেন? ইতালি থেকে আসছি।’

‘ই-ই-ইতালি, কোন ইতালি, না না, তুমি ভুলেও এদিকে পা বাড়াবে না। বাড়ালে পুলিশ ডাকব। বেঁচে থাকলে দেখা হবে করোনা কেটে গেলে।’
এদিকে মায়ের আচরণে কারিনা কেঁদে কেঁদে বেহুঁশ। মা কারিনার সঙ্গে জামাইয়ের মোবাইল ফোন যোগাযোগও বন্ধ করে দিলেন।

ক’দিন চলে গেল। যোগাযোগ নেই। মায়ের সন্দেহ হল, কারিনা হয়ত সন্ধ্যার পর বাড়ির পেছনে বাঁশতলায় জামাইর সঙ্গে দেখা করে। তাই তিনি এক সন্ধ্যায় ঘরের বাইরে পাহারায় বসলেন। কারিনাও বেরোতে পারছে না। মা এবার হাতেনাতে ধরতে চাইলেন। চুপচাপ অন্ধকারে বাঁশতলায় বসে পথের দিকে চেয়ে থাকলেন। এদিকে জামাই চুপিচুপি অন্যপথে কাছাকাছি এসে কারিনা ভেবে শাশুড়িকে জড়িয়ে ধরে বলে, ‘আই লাভ ইউ!’ অস্পষ্ট আলোয় চোখাচোখি হতেই ইতালিয়ান জামাইর কপালে ঝাটার বাড়ি পড়তে লাগল একের পর এক!