মনের কথা

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল ২০২০ | ২৪ চৈত্র ১৪২৬

মনের কথা

হামীম রায়হান ১:৫০ অপরাহ্ণ, মার্চ ১০, ২০২০

print
মনের কথা

মুরাদপুর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়গামী বাসে উঠলাম। ক্যাম্পাস এখন বন্ধ, তাই ভিড় একদম নেই। বাস একপ্রকার ফাঁকা। প্রশাসনিক ভবনে কিছু কাজ ছিল, তাই যেতে হচ্ছে।

বাসে উঠে জানলার সিট ধরে বসলাম। পাশের সিট খালি। বাস চলছে, অক্সিজেন মোড়ে এসে দাঁড়ায়। জানালা দিয়ে দেখি, একটা মেয়ে আমার বাসে উঠছে। চেহারার লাবণ্যে আমি মুগ্ধ হয়ে গেলাম! নীল কাপড়ে মেয়েটিকে যেন মনে হচ্ছে অপ্সরী। উঠেই এদিক-ওদিক তাকিয়ে আমার পাশে এসে দাঁড়াল। মিষ্টি সুরে জিজ্ঞেস করে, ‘বসতে পারি!’

‘জি, অবশ্যই।’ মনে মনে খুশি হলাম। গাড়ি চলছে। আমি ছটফট করতে লাগলাম কথা বলার জন্য। মেয়েটি এবার নিজ থেকেই বলল, ‘আমি সুরভি, ইতিহাস বিভাগে তৃতীয় বর্ষে। আপনি?’

‘আমি সাইমন আরেফিন। গণিতে মাস্টার্স করছি।’ ‘গণিতে! আপনি সরওয়ার কামাল স্যারকে চেনেন?’ ‘কেন চিনব না। উনি তো আমাদের মাস্টার্স পরীক্ষার প্রধান।’ মনে মনে বললাম, ব্যাটার মতো এমন নির্দয় ও দজ্জাল স্যার পুরো বিশ^বিদ্যালয়ে দ্বিতীয়টি নেই। এরই মধ্যেই সবাই জেনে গেছে তার সম্পর্কে!

এভাবে একথা-সেকথা বলে অনেকক্ষণ সময় কেটে গেল। মেয়েটিকে ভালো লাগতে শুরু করল। কথায় কথায় গাড়ি বিশ^বিদ্যালয় গেটে এসে থামে। মেয়েটির ভাড়াও দিয়ে দিলাম। নামার সময় মেয়েটিকে জিজ্ঞাসা করি, সারওয়ার স্যারের কথা কীভাবে জানে?

হেসে জবাব দেয়, ‘উনি আমার বড় ভাই।’

কথাটা শুনে মাথা চক্কর দিয়ে ওঠে। ভাগ্যিস মনের কথা মুখে আনিনি! এবারের মতো বাঁচা গেল। সামনে পরীক্ষা!