রাশি দুই প্রকার

ঢাকা, শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০ | ২০ চৈত্র ১৪২৬

রাশি দুই প্রকার

শফিক শাহরিয়ার ২:৩৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২০

print
রাশি দুই প্রকার

রাশি নিয়ে আমার কোনো মাথাব্যথা নেই। যদিও অনেকের সারা গায়ে ব্যথা। তারা হয়ত ব্যথার ট্যাবলেট খেয়ে খেয়ে দিনাতিপাত করছে। কারও ব্যথা সারে, আবার কারও ব্যথায় চোখে ঘুম আসে না। সারারাত ছটফট করে পোহায়। নিজেকে রাশি দিয়ে কখনো যাচাই বাছাই করি না। আজ অনেক ভেবে-চিন্তে রাশি সম্পর্কে কিছু গবেষণা পেশ করছি। আমার মতে, রাশি দুই প্রকার। জোড় রাশি ও বেজোড় রাশি। যারা আজীবন সিঙ্গেল আছেন, তারা বেজোড় রাশি। যাদের কালেভদ্রে অন্তত একটা প্রেম জুটেছে, তাদের জোড় রাশি। বেজোড় রাশির মানুষই প্রকৃতপক্ষে সুখী।

জোড় রাশির মানুষ মনে করেন, হাসির চেয়ে কাশি ভালো। তারা জীবনের সুখ-আহ্লাদের মাঝে থেকেও হাসার সময় পায় না। বুকে জমেছে শক্ত কাশ। কাশতে কাশতে জীবনটা পার করছেন। তাই বলে ভাববেন না আপনাদের যক্ষা হয়েছে! এমনকি কাশির চোটে কারও প্রিয়জন হাসিমুখে বিদায় নিয়েছে। আপনারা যদি সুখী মানুষের তালিকায় প্রথম হতে চান, বইমেলায় যান। বেশি বেশি বই কিনে প্রিয়জনকে উপহার দিন।

মজার মজার বই পড়ে সময় কাটাতে পারেন। নিজে না হাসলেও অন্যকে হাসার সুযোগ দিন। অন্তত সে আপনাকে হাসাতে পারবে বলে মনে হয়।

অন্যথায় কাতুকুতু দিয়ে হলেও আপনাকে হাসাতে পারবে। বেজোড় রাশির মানুষ মনে করেন, কাশির চেয়ে হাসি ভালো। তাদের কাশতে কষ্ট হলেও হাসতে কষ্ট লাগে না। ব্যর্থ প্রেমিক বুকভরা হাহাকার কষ্ট থাকলেও ফ্রি ফ্রি হাসতে থাকেন। তাদের কাশতে মানা, হাসতে মানা নেই। কারণ না হাসলে কারও মনটা ফ্রি হয় না। তাদের মুখে কাশির কোনো চান্স থাকে না। যে কোনো কথা বা কাজেই মুখে অ্যাডভান্স হাসি থাকে।

তখন দেখা যায়, অনেকে তাদের গা ঘেঁষে বসতে চায়। একশ’বার কাশি দিয়ে যে কাজ হয় না, একবার হাসি দিয়েই সে কাজ অনায়াসে সম্পন্ন করা যায়। প্রমাণ হলো, বেজোড় রাশির মানুষ অসুখী নয়।