বছরে চার ফসল ঘরে তুলবে কৃষক

ঢাকা, সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১ | ৫ মাঘ ১৪২৭

বছরে চার ফসল ঘরে তুলবে কৃষক

রাকিবুল হাসান রুবেল, ময়মনসিংহ ২:০৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১১, ২০২০

print
বছরে চার ফসল ঘরে তুলবে কৃষক

আগাম জাতের আমন বিনা ধান-১১ ও বিনা ধান-৭ কেটে ঘরে তোলায় ব্যস্ত সময় পার করছেন ময়মনসিংহ অঞ্চলের কৃষকরা। বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিনা) উদ্ভাবিত আগাম এ জাতের ধান আমন মৌসুমে চাষ করে পরবর্তীতে সরিষা, পাটশাকসহ সল্প মেয়াদী রবিশষ্য চাষ করতে পারে। পরবর্তীতেও বোরো ধান আবাদ করতে পারে।

ফলে একজন কৃষক একই জমি থেকে বছরে চারটি ফসল ঘরে তুলতে পারে। এতে দারুণ খুশি এ অঞ্চলের কৃষক। তাছাড়াও এ বছর লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে আরও তিন হাজার ৪০০ হেক্টর বেশি জমিতে আমন ধানের আবাদ হয়েছে জানিয়েছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর।

কৃষক আব্দুর রশিদ জানান, এক একরের মতো জমিতে বিনা ধান-১১ ও বিনা ধান-৭ আবাদ করেছি। বাকি জমিতে অন্য জাতের ধান আবাদ করেছি। অন্যান্য জাতের আমন ধান না পাকলেও বিনা জাতের ধান কাটা প্রায় শেষ। আগাম জাতের আমন ধান বিক্রি করে ভালো দামও পাচ্ছি। আমরা এ ধান চাষ করে একই জমি থেকে বছরে চারটি ফসল ঘরে তুলতে পারব।

আরেক কৃষক রুহুল আমীন জানান, কার্তিক মাসে এ অঞ্চলের কৃষকের ঘরে কিছুটা অভাব দেখা দেয়। সেইসঙ্গে দেখা দেয় গো খাদ্য সংকট। বিনা উদ্ভাবিত আগাম জাতের বিনা ধান-১১ ও বিনা ধান-৭ আবাদ করে যেমন ভালো দাম পাওয়া যাচ্ছে তেমনই এর খড় বিক্রি করেও আমরা লাভবান হচ্ছি।

বিনা ধান রোপণের ৭৫ থেকে ৮০ দিনের মাথায় কাটা যায়। এরপর একই জমিতে বিনার জাতের সরিষার আবাদ করি। সরিষা কেটে অল্প সময়ের জন্য ওই জমিতে পাট শাক করতে পারি। এভাবে একই জমি থেকে বছরে চার ফসল করা সম্ভব।

বিনার ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. ফিরোজ হাসান জানান, প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষককে একই জমিতে চারটি ফসল করার ক্ষেত্রে বিনার প্রযুক্তিগত সহায়তা করা হচ্ছে। আগে কৃষক দেশীয় জাতের ধান আবাদ করে ১২০ দিন অপেক্ষা করতে হতো ঘরে ফসল তোলার ক্ষেত্রে।

বর্তমানে বিনার কল্যাণে তারা ৭৫ থেকে ৯০ দিনে স্বল্প জীবনকালের আগাম জাতের ধান ঘর তুলতে পারছেন। তাছাড়াও বোরো ধান রোপণের আগে সরিষা বা পাট শাক আবাদ করে বাড়তি আয় করতে পারছেন।