ধান কাটার ধুম

ঢাকা, শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১ | ২ মাঘ ১৪২৭

ধান কাটার ধুম

মাসুদ রানা রাব্বানী, রাজশাহী ১১:৪৩ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ০৯, ২০২০

print
ধান কাটার ধুম

রাজশাহীর আমনের মাঠে হাওয়ায় দুলছে সোনালি ধান। হেমন্তের মিষ্টি হাওয়ায় সেই ধান ঘরে তুলতে ব্যস্ত এ অঞ্চলের চাষি। নানা স্বপ্নের বীজ বোনা যেন এই ফসলে। বাম্পার ফলনে সেই স্বপ্ন-সফলতার দারপ্রান্তে। তাই বেশ হাসিখুশিই তারা। যদিও শুরুতে লড়তে হয়েছে আবহাওয়ার বৈরিতার সঙ্গে। চকচকে সোনালি ধান কাটিয়ে দিয়েছে সে ক্লান্তি। সব ঠিকঠাক থাকলে শতভাগ ফসল উঠবে ঘরে।

রাজশাহী অঞ্চলে (রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর ও নওগাঁ) আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ৩ লাখ ৯৪ হাজার ৯০০ হেক্টরকে ছাড়িয়েছে। আবাদ হয়েছে ৩ লাখ ৯৬ হাজার ২২৫ হেক্টর। যদিও মৌসুমে চালের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে ১১ লাখ ৪৫ মেট্রিক টন। এর মধ্যে নওগাঁ জেলায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৪০ হাজার ১১৫ মেট্রিক টন অতিরিক্ত চাল উৎপাদনের সম্ভাবনা রয়েছে।

‘এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে উৎপাদন ভালো হবে’ বলে জানিয়েছেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের আঞ্চলিক উপপরিচালক সুরেন্দ্রনাথ রায়। এরই মধ্যে ৬ শতাংশ রোপা আমন ধান কাটা শেষ হয়েছে। ডিসেম্বরের মাঝামাঝিতে আমন ধান কাটা শেষ হবে এমনটাই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। 

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য মতে, এবার রাজশাহীতে আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৭৬ হাজার ৫০০ হেক্টর। যার উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২ লাখ ২৪ হাজার ৪৯ মেট্রিক টন। তবে এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১ হাজার ৭০ হেক্টর বেশি জমিতে অর্থাৎ ৭৭ হাজার ৫৭০ হেক্টর জমিতে আমনের আবাদ করা হয়েছে।

কৃষকরা বলছেন, এবার প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে ধানের আবাদে অন্যান্য বছরের চেয়ে বেশি খাটতে হয়েছে। শঙ্কাও কম ছিল না। এখন ধান পরিপক্ব হয়েছে। এখন ধান কাটতে শুরু করেছেন।

তারা জানান, এবার প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে শেষ পর্যন্ত ফলন কিছুটা কমলেও দাম ভালো থাকায় খুশি তারা। আর আবহাওয়া ঠিক থাকলে শতভাগ ফসল ঘরে তুলতে পারবেন বলে মনে করছেন তারা।