গঙ্গাচড়ায় মিষ্টি কুমড়ায় কৃষকের মুখে হাসি

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৩ আশ্বিন ১৪২৭

গঙ্গাচড়ায় মিষ্টি কুমড়ায় কৃষকের মুখে হাসি

নির্মল রায়, গঙ্গাচড়া (রংপুর) ১০:১২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২০, ২০২০

print
গঙ্গাচড়ায় মিষ্টি কুমড়ায় কৃষকের মুখে হাসি

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় তিস্তা নদীর জেগে ওঠা ধু-ধু বালুচরে ব্যাপক হারে মিষ্টি কুমড়ার চাষ করেছেন স্থানীয়রা চাষিরা। তারা জানান, মিষ্টি কুমড়া চাষে খরচ কম, লাভও বেশি। ফলে তিস্তাপাড়ের অধিকাংশ চাষি কুমড়ার চাষ করেছেন।

উপজেলার কোলকোন্দ ইউনিয়নের শিঙ্গীমারী চর, মিয়াজীপাড়া চর, লক্ষ্মীটারী ইউনিয়নের শংকরদহ চর এবং গজঘন্টা ইউনিয়নের ছালাপাক চর ঘুরে দেখা গেছে, একরের পর একর বালুময় জমি ছেয়ে গেছে মিষ্টি কুমড়ার সবুজ পাতায়। চাষিরা ব্যস্ত সময় পার করছেন কুমড়া ক্ষেত পরিচর্যায়।

শিঙ্গীমারী চরের কুমড়া চাষি ভুবেশ্বর রায়, আরতী রানী, ইলিয়াস আলী, মতি মিয়াসহ অনেকে জানান, কুমড়া চাষে খরচ কম, লাভ বেশি। কুমড়া বীজ বপন থেকে পরিপক্ব হওয়া পর্যন্ত সময় লাগে ৬৫-৭০ দিন। প্রকারভেদে প্রতিটি কুমড়া বিক্রি হয় ৩৫ থেকে ৫৫ টাকা। গত বছর কুমড়া চাষে আমরা লাভবান হয়েছি।

তাই এ বছর আরও বেশি কুমড়া চাষ করেছি। তারা কুমড়া চাষে সরকারিভাবে আর্থিক সহযোগিতাসহ আধুনিক প্রশিক্ষণের দাবি জানান।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম বলেন, কুমড়া চাষে কৃষকদের পরামর্শ সহ সব ধরনের সহযোগিতা করা হচ্ছে। এছাড়া কৃষকদের আধুনিক ও প্রযুক্তিনির্ভর হিসেবে গড়ে তুলতে কৃষি বিভাগ কাজ করে যাচ্ছে।