কাউনিয়ায় বোরো ধানে বাম্পার ফলন

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২ | ১৫ আষাঢ় ১৪২৯

Khola Kagoj BD
Khule Dey Apnar chokh

কাউনিয়ায় বোরো ধানে বাম্পার ফলন

মোস্তাক আহমেদ, কাউনিয়া (রংপুর)
🕐 ৪:০৪ অপরাহ্ণ, মে ৩০, ২০২২

কাউনিয়ায় বোরো ধানে বাম্পার ফলন

‘রাশি রাশি ভাড়া ভাড়া... ধান কাটা হলো সারা.... আমার সোনার ধানে গিয়াছে ভরি...সোনার তরী। রবি ঠাকুরের সোনার তরী কবিতাটির স্ফলন ঘটেছে কাউনিয়ায়। চলতি বোরো মৌসুমে ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। অতিবৃষ্টি ও হঠাৎ বন্যায় ধানের কিছুটা ক্ষতি হলেও ভাল দাম পেয়ে কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে।

সরেজমিনে উপজেলার পৌরসভাসহ ৬টি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের ফসলী মাঠ ঘুরে দেখা গেছে, অধিকাংশ জমির ধান কাটা হয়েছে। মৌসুমের শুরতে অতিবৃষ্টি ও আগাম বন্যায় কিছু কিছু কৃষকের বার্তি ভোগান্তি ও নষ্ট হলেও চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় রোগ বালাইয়ের প্রার্দুরভাব কম হওয়ায় বাম্পার ফলন হয়েছে। সরকার চালের কেজি ৪০ টাকা নির্ধারন এবং বাজারে চালের দাম বেশী থাকায় ভাল দাম পওয়ার আশা করছে এলাকার কৃষক। উপজেলা দিগন্ত মাঠ জুড়ে সোনালী রংয়ের ঝিলিক, সোনালী ধানের শীষ বাতাসে যখন দোল খায় কি অপুরূপ দৃশ্যের সৃষ্টি হয়।

অতিবৃষ্টির পর সোলারী রোদ পেয়ে কৃষক-কৃষাণীর মনে ফসলের অবস্থা দেখে আনন্দের ঢেউ লেগেছে। এখন যদি প্রকৃতি বৈরী না হয় তবে কয়েক দিনের মধ্যেই কৃষকের গোলায় উঠবে সোনালী ধান। ইতিমধ্যে হাট-বাজার গুলোতে কাচি, কুলা, ডালি, গোলা বিক্রির ধুম পড়েছে। বাঁশ ও বাঁশজাত দ্রব্য বিক্রেতারা এই মৌসমটির অপেক্ষায় থাকে। এ মৌসমে তাদের ব্যবসা ভাল হয়।

গদাই গ্রামের কৃষক শাহাজাহান মন্ডল, নিজপাড়া গ্রামের প্রহলাদ চন্দ্র, হরিশ্বর গ্রামের শাহাব উদ্দিন, রাজিব গ্রামের হাবিবুর ডাক্তার, নিজদর্পা গ্রামের আমিন উদ্দিন জানায় এবার বিদ্যুতের কিছুটা সমস্যা থাকলেও সময় মতো বৃষ্টি হওয়ায় ধানের ভাল ফলন হয়েছে। আল্লাহ সহায় আছে বলে এবার বাম্পার ফলন হয়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শাহনাজ পারভিন জানান, উপজেলায় ৭৫১৪ হেক্টর জমিতে ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে অর্জন হয়েছে ৭৫৫০ হেক্টর জমিতে। বেশীর ভাগ হাইব্রীড ও উফশি জাতের ধান চাষ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে বিরি ২৮ জাতের ধান সহ প্রায় ৯০ ভাগ ধানা কাটা শেষ হয়েছে। কয়েক দিনের মধ্যে অন্য সকল ধানই কাটাও শেষ হবে। এ বছর উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৩১৮৪০ মে.টন চাউল। সরকার কৃষকের ফলন বৃদ্ধিতে সব রকম সহযোগিতা প্রদান অব্যাহত রেখেছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহমিনা তারিন জানান, সরকার খাদ্য নিরাপত্তা বেষ্টনী তৈরির লক্ষ্যে কৃষকদের সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করে আসছে। কৃষক যেন সেচ কাজে সঠিক সময়ে সার ও বিদ্যুৎ পায় সে ব্যাপারে তদারকি ছিল এবং এখনও আছে। সার, বীজ, ডিজেল, কীটনাশক এর বাজার সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হয়।

বিশেষ করে এবার এই উপজেলায় সারের কোন সংকট হয়নি। সরকার এবার ধান ২৮ টাকা ও চাউল ৪০ টাকা কেজি দরে ক্রয় করছে। ফলে কৃষক ধানের ভাল দাম পাচ্ছে। নানা প্রতিকুলতার মাঝেও কাউনিয়া উপজেলা চলতি বোরো মৌসমে বাম্পার ফলন হওয়ায় কৃষকের মূখে হাসি ফুটে উঠেছে।

 
Electronic Paper