বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮
বসন্ত এসে গেছে...
আকাশে বহিছে প্রেম, নয়নে লাগিছে নেশা
নিজস্ব প্রতিবেদক
Published : Tuesday, 13 February, 2018 at 4:56 PM
আকাশে বহিছে প্রেম, নয়নে লাগিছে নেশা
আজ ফাল্গুন মাসের পহেলা দিন। ঋতুচক্রে ফিরে এসেছে বসন্ত। দিন গুণে যে বসন্ত আসে না, তা জানেন না কে? অনেকে বলেন, বাংলা মাসের ছয়টি ঋতুই মানুষ ত্বক দিয়ে অনুভব করে। বাতাসে আর্দ্রতায়, উষ্ণতায় কিংবা রুক্ষতায় অনুভূত হয় ঋতুগুলো। কিন্তু বসন্ত? বোধহয় এটিই একমাত্র ঋতু যার আগমনী বার্তা যতটা না প্রকৃতিতে বিম্বিত হয় তার চেয়ে বেশি বিম্বিত হয় হৃদয়ে। ফলে দিন-তারিখ গুণে প্রকৃতিতে ফুল ফুটল কি ফুটল না, বাতাস বইল কি বইল না তার হিসেব কষে ‘বসন্ত এসে গেছে’ বলার জো নেই কারও। তাই কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায় বসন্তের সহজাত সুন্দর আর তার অনিবার্যতা ঘোষণা করেন এভাবে-‘ফুল ফুটুক আর না ফুটুক আজ বসন্ত, শান বাঁধানো ফুটপাতে পাথরে পা ডুবিয়ে এক কাঠখোট্টা গাছ, কচি কচি পাতায় পাঁজর ফাটিয়ে হাসছে।’
বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তার শান্তিনিকেতনে সবচেয়ে বড় অনুষ্ঠানটি আয়োজন করতেন বসন্তের প্রথম দিন। এখনো সে রেওয়াজ পালিত হয়। কারণ, তারণ্য, প্রেম ও প্রীতির ঋতু যে বসন্ত!
রবিঠাকুর লিখছেন, আজি বসন্ত জাগ্রত দ্বারে।/তব অবগুণ্ঠিত কণ্ঠিত জীবনে/করো না বিড়ম্বিত তারে।/আজি খুলিয়ো হৃদয়দল খুলিয়ো,/আজি ভুলিয়ো আপনপর ভুলিয়ো/এই সংগীত মুখরিত গগনে/তব গন্ধ তরঙ্গিয়া তুলিয়ো।
ঋতুপর্যায়ে বসন্ত নিয়ে অসংখ্য গান ও কবিতা লিখেছেন রবীন্দ্রনাথ। তারই একটি-‘ফাগুন হাওয়ায় হাওয়ায় করেছি যে দান,/তোমার হাওয়ায় হাওয়ায় করেছি যে দান।/তোমার আপন হারা প্রাণ/আমার বাঁধন ছেঁড়া প্রাণ...। বসন্তে এ গান গায়নি এমন বাঙালি আছে কজন? বসন্তে প্রাণ বাঁধনহারা হবেই। কারণ, প্রাণেই বসন্তের প্রথম অনুভ‚তি। মনেই তার প্রথম দোলা; চোখেই তার প্রথম কম্পন আর শরীরে প্রথম উষ্ণতার চিহ্ন এঁকে দেয় বসন্তের বাতাস। শুধু নাগরিক কবি বা শিল্পী নন, শাহ আব্দুল করিমের মতো একজন সাধারণ মরমি লোকশিল্পীও তার অন্তরের অনুভব দিয়ে গেয়েছেন- ‘বসন্ত বাতাসে সই গো বসন্ত বাতাসে, বন্ধুর বাড়ির ফুলের গন্ধ, আমার বাড়ি আসে।’
বিদ্রোহী নজরুলও বসন্তে পাগলপারা। লেখেন- ‘এলো বনান্তে পাগল বসন্ত/ বনে বনে মনে মনে রং সে ছড়ায় রে/চঞ্চল তরুণ দুরন্ত...’।
বসন্তের জৌলুশকে ছাপিয়ে যেতে পারেনি কোনো ঋতু। ফলে ‘ঋতুরাজ’ বলে বসন্তকে আলাদা তকমা দিতে হয় না। তার রাজসিক আগমন সব মানুষকেই আন্দোলিত করে। বসন্তের রঙ, রূপ, রস ও চেতনায় রাঙা হওয়া ছাড়া গত্যন্তর নেই কারও। মানুষ জীবন যেমন উদযাপন করে, তেমনি যৌবনের ঋতু বসন্তকেও উদযাপন করতে হয়। এটা বাঙালি নয়, সারা পৃথিবীর মানুষের রেওয়াজ। বসন্তে নিজেকে অবহেলা করতে নেই। বরং নিজেকে প্রকাশ করতে হয় রঙে-রূপে-চেতনায়। নগরজীবনে এ চেতনা বড্ড আরোপিত ঠেকলেও এর সৌন্দর্য এখনো আদিম ও প্রাকৃতিক। তাই বসন্ত নিয়ে আমাদের মাতামাতিও একটু বাড়াবাড়ি রকমের। যৌবনের ধর্মই এটা।
সম্প্রতি অনেক গান ও কবিতাকে ছাপিয়ে শিল্পী অনুপম রায়ের কথা ও সুরে একটি গান খুব বেশি বেশি গাইছে বাঙালি। গানটিতে নাগরিক মেজাজ যেমন আছে তেমনি আছে একটা সহজ আবেদনও-‘আকাশে বহিছে প্রেম, নয়নে লাগিল নেশা/কারা যে ডাকিল পিছে! বসন্ত এসে গেছে... থাক তব ভুবনের ধুলিমাখা চরণে/মাথা নত করে রব, বসন্ত এসে গেছে/বসন্ত এসে গেছে...। বসন্ত আসুক মানুষ, দেশ, রাষ্ট্র ও জাতি নির্বিশেষে সর্বত্র।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: আহসান হাবীব
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত খোলাকাগজ ২০১৬
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: বসতি হরাইজন এ্যাপার্টমেন্ট নং ১৮/বি, হাউজ-২১, রোড-১৭, বনানী বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১২১৩।
ফোন : +৮৮-০২-৯৮২২০২১, ৯৮২২০২৯, ৯৮২২০৩২, ৯৮২২০৩৬, ৯৮২২০৩৭, ফ্যাক্স: ৯৮২১১৯৩, ই-মেইল : kholakagojnews@gmail.com
Developed & Maintenance by i2soft
var _Hasync= _Hasync|| []; _Hasync.push(['Histats.start', '1,3452539,4,6,200,40,00010101']); _Hasync.push(['Histats.fasi', '1']); _Hasync.push(['Histats.track_hits', '']); (function() { var hs = document.createElement('script'); hs.type = 'text/javascript'; hs.async = true; hs.src = ('//s10.histats.com/js15_as.js'); (document.getElementsByTagName('head')[0] || document.getElementsByTagName('body')[0]).appendChild(hs); })();